বাড়িতে জন্মদিনের কেক বানানোর সহজ রেসিপি জেনে নিন

বাড়িতে জন্মদিনের কেক বানানোর সহজ রেসিপি জেনে নিন

কেক বানানোর রেসিপি

প্রিয় পাঠক, বাড়িতে বসেই কিভাবে জন্মদিনের বা বার্থডে কেক বানাবেন, তা নিয়ে আজ থাকছে ২ টি সহজ কেক বানানোর রেসিপি! জন্মদিনের অনুষ্ঠানের মেনুতে যে সকল আইটেম থাকে, তার মধ্যে বার্থডে কেক হলো প্রধান। কেননা; বার্থডে কেক ছাড়া বার্থডে অনুষ্ঠান অসম্পূর্ণই থেকে যায়।

আজকের দেখানো কেক বানানোর সহজ পদ্ধতি অনুসরণ করে আপনি, চুলায় এবং ওভেনে দুই পদ্ধতিতেই জন্ম দিনের কেক বানাতে পারবেন! আমরা যে যে কেক বানানের রেসিপি দেখবো তা হলোঃ
১. চুলায় জন্মদিনের প্লেইন কেক বানানোর রেসিপি
২. জন্মদিনের ডিমের কেক রেসিপি

১। চুলায় জন্মদিনের প্লেইন কেক বানানোর রেসিপি:

জন্মদিনের প্লেইন কেক বানানোর সমস্ত উপকরণ নাম ও পরিমাপ নিচের টেবিলে দেয়া হলোঃ

উপাদানের নাম:উপাদানের পরিমান:
ময়দা২ কাপ নিতে হবে
ডিমের সাদা অংশ৪টি ডিমের সাদা অংশ নিতে হবে
ডিমের কুসুম৪টি ডিমের কুসুম নিতে হবে
চিনি৭ চা চামচ লাগবে
বেকিং সোডাহাফ চা চামচ নিতে হবে
বেকিং পাউডারএক চা চামচ
বাটার২০০ গ্রাম নিতে হবে
ভেনিলা এসেন্স এক চা চামচ নিতে হবে
গুড়া দুধমাত্র ৩ চা চামচ
জন্মদিনের কেক বানানোর উপকরণ

এই বার্থডে কেক বানানোর নিয়ম:

কেক বানানোর জন্য প্রথমেই ডিমের সাদা অংশ আলাদা করে নিয়ে ফেটাতে হবে! এজন্য একটি বিটার দিয়ে বিট করে ফোমের মতো বানিয়ে নেয়া যেতে পারে। ভালো করে বিট করার পরে; এর সাথে একটি করে ডিমের কুসুম দিতে হবে এবং বিট করতে হবে।

মনে রাখতে হবে, ভালো ভাবে ফেটানোই হলো কেক বানানোর গোপন কৌশল ! এরপরে, চিনি, ভেনিলা এবং বাটার মিশিয়ে আবার বিট করে নিতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে; যেনো বাটার ভালো করে গলে ও মিশে যায়।

এখন, আলাদা একটি পাত্রে, ময়দা, বেকিং পাউডার, বেকিং সোডা ও গুড়া দুধ ঢেলে হাত দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে; একটি ময়দা চালনা চালুনি দিয়ে চেলে নিতে হবে! এরপরে, ফেটিয়ে রাখা বাটার ও ডিমের সাথে মিশিয়ে বেটার বানাতে হবে। এই বেটার দিয়েই কেক বানাতে হবে! সুতরাং লক্ষ্য রাখতে হবে যেনো বেটার বা মিশ্রণ বেশি তরল কিংবা বেশি ঘন হয়ে না যায়।

এখন চুলায় কেক বানানোর জন্য একটি ভারি ও মোটা অ্যালুমিনিয়ামের পাত্র বা সসপ্যান নিতে হবে। এটা আগেই চুলায় দিয়ে গরম করে নিয়ে রাখতে হবে! পরে গোল আকৃতির কেক মোল্ড এ গ্রিস কাগজের মধ্যে বাটার মাখিয়ে তাতে কেক বানানোর বেটার বা তরল মিশ্রণ সমান ভাবে ঢেলে দিতে হবে!! যদি মোল্ড করা সম্ভব না হয়, তবে একটি রাইচ কুকারের বাটি ব্যবহার করতে হবে! রাইচ কুকারের মতো বাটিতে কাগজ দিয়ে, তার মধ্যে বেটার ঢেলে, মুখ বন্ধ করে; চুলায় দিয়ে রাখা মোটা সসপ্যানে; (সসপ্যন না থাকলে কড়াই ব্যবহার করা যেতে পারে) বেটারের পাত্র বসিয়ে দিতে হবে।

চাইনিজ খারার বানানোর সহজ রেসিপি

এই পদ্ধতিতে কেক প্রায় ১ ঘন্টা অল্প তাপে রান্না করতে হবে! কেকের বেটার ঢালা পাত্র অন্য আরেকটি মোটা পাত্রের উপর দেয়ার প্রধান কারণ হলো; সরাসরি একটি পাত্রে কেক বানাতে গেলে পুড়ে যাওয়ার সম্ভাবণা রয়েছে! একটি কাঠি কেকের মধ্যে ঢুকিয়ে দেখতে হবে যে কেক হয়েছে কিনা! যদি কাঠি পুরিষ্কার হয়ে বের হয়; তখন বুঝতে হবে যে কেক হয়ে গেছে। আর যদি কাঠির সাথে বেটার বা কেকের উপদান লেগে থাকতে দেখা যায়; তখন বুঝতে হবে যে কেক এখনো পুরোপুরি হয়নি।

যাদের বাড়িতে গ্যাস ওভেনে বা মাইক্রোওয়েভ আছে, তারাও চুলায় না দিয়ে ওভেনে করে কেক বানাতে পারবেন! যাইহোক, কেক বানানো হলে, তা বের করে তা ১ ঘন্টা রেখে দিয়ে ঠান্ডা করে নিতে হবে! জন্মদিনের বা বার্থডে কেকের উপর ক্রিম দিতে হয়। সুতরাং আমরা এখন জন্মদিনের কেকের জন্য ক্রিম বানানোর সহজ রেসিপি জেনে নিব।

জন্মদিনের কেক এর ক্রিম বানানোর রেসিপি: উপকরণঃ

  • বাটার নিতে হবে ৪০০ গ্রাম
  • ৫০ গ্রাম আইসিং সুগার নিতে হবে
  • কনডেন্সড মিল্ক নিতে হবে হাফ টিন
  • ঘন দুধ নিতে হবে ১ কাপ
  • ভেনিলা এসেন্স নিতে হবে হাফ চা চামচ
  • খাওয়ার রং নিতে হবে সামান্য পরিমান

ক্রিম বানানোর নিয়ম:
প্রথমেই বাটার গলিয়ে মিহি করে নিতে হবে! বাটার গলিয়ে নিয়ে তাতে আইসিং সুগার, ঘন দুধ, কনডেন্স মিল্ক ও ভেনিলা দিয়ে ভালো করে বিটার দিয়ে বিট করতে হবে। এরপরে; তা অন্য একটি পাত্রে নিয়ে ইচ্ছে মত ফুড কালা দেয়া যেতে পরে! এভাবে ক্রিম বানিয়ে নিয়ে জন্মদিনের কেক সাজাতে হবে।

২। জন্মদিনের বা বার্থডে অনুষ্ঠানের ডিমের কেক বানানোর রেসিপি:

উপকরণ:

  • ডিম নিতে হবে ৩ টি
  • ময়দা নিতে হবে হাফ কাপ
  • চিনি হাফ কাপ
  • গুড়া দুধ নিতে হবে হাফ কাপ
  • ভেনিলা ১ চা চামচ
  • বেকিং পাউডার ১ চা চামচ নিতে হবে
  • তেল নিতে হবে ২ টেবিল চামচ
  • ক্রিম নিতে হবে পরিমান মতো

ডিম দিয়ে জন্মদিনের কেক বানানোর নিয়ম:

প্রথমেই একটি পাত্রে ডিম নিয়ে ভালো ভাবে ফেটিয়ে নিতে হবে! এরপরে, তাতে অল্প অল্প করে চিনি ঢেলে আরো ফেটতে হবে। এরপরে; তাতে সয়াবিন তেল, ভেনিলা ও দুধ ঢেলে আরো ভালো করে ফেটিয়ে নিতে হবে। এখন অল্প অল্প ময়দা ঢেলে আরো ফেটতে হবে! মনে রাখতে হবে কেক বানানোর মিশ্রণ বা বেটার ভালো করে না ফেটলে কেক হয়না।

চুলায় কেক বানাতে হলে, চুলায় একটি মোটা কড়াই বা কড়াইয়ের মতো পাত্র বসিয়ে নিতে হবে! সেই পাতের উপর গোলাকা আরেকটি স্টিলের পাত্র বসাতে হবে। তারপর তাতে একটি কাগজ বিছিয়ে; কাগজের উপর তেল লাগিয়ে নিয়ে; কাগজের উপর কেক বানানোর জন্য রাখা সমস্ত মিশ্রণ ঢেলে দিতে হবে।

এরপরে কেক রাখা পাত্রের মুখ ভালো ভাবে ঢেকে দিতে হবে। প্রায় ৪০-৫০ মিনিট পরে কেকের মধ্যে কাঠি ঢুকিয়ে দেখে নিতে হবে যে; কেক পুরোপুরি হয়েছে কিনা। এভাবে কেক বানানোর পরে কেক ঠান্ডা করে নিতে হবে।

কেক বানানোর পরে এবার কেক সাজানোর পালা। কেক সাজানোর জন্য ক্রিম প্রয়োজন হয়! উপরের ১ নং রেসিপিতে ক্রিম বানানোর নিয়ম দেখানো হয়েছে। তবে; সব চেয়ে ভালো হয় হুইপড ক্রিম দিয়ে কেক সাজালে ! সহজে হুইপড ক্রিম বানানোর রেসিপি দেখে নিন।

আরো পড়ুন-
১৩ রকমের মজার পুডিং রেসিপি
রান্না শিক্ষার বই

উপরের দুটি প্রক্রিয়ায় আপনারা জন্মদিনের কেক বানাতে পারবেন ! কেক বানানোর এই রেসিপি কোথায়ও বুঝতে অসুবিধা হলে নিচে কমেন্ট করে জানাবেন।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *